https://cpublish.com/ Skill bulder

বর্তমান যুগ প্রযুক্তিনির্ভর যুগ আর এই যুগে যতগুলো আবিষ্কার রয়েছে তার ভিতরে মোবাইল ফোন অন্যতম। আর আমরা এখন মোবাইল ফোন ছাড়া নিজেকে কল্পনাও করতে পারি না মোবাইল ফোন আবিষ্কার করেন মার্টিন কুপার।তিনি ১৯৭৩ সালের ৩ ই এপ্রিল মোবাইল ফোন আবিষ্কার করেন। আবিষ্কার করার পর থেকেই তার এই মোবাইল ফোনের জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলছে।

আপনি কি জানেন সর্বপ্রথম মোবাইল ফোন টির নাম কি ছিল? সর্বপ্রথম মোবাইল ফোন টির নাম ছিল Motorola DynaTAC” দৈনন্দিন জীবনে মোবাইল ফোন আমাদের একটি গুরুত্বপূর্ণ ডিভাইস।

আমাদের দিনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্রায় প্রত্যেকটি কাজেই আমরা মোবাইল ফোন ব্যবহার করি। সকালে এলার্মের শব্দে ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা মোবাইল ফোন প্রতিনিয়ত এই ব্যবহার করে থাকি।

যেহেতু এটি পৃথিবীর সর্বপ্রথম মোবাইল ফোন ছিল তাই এটির ক্রয় মূল্য ছিল অনেক বেশি যা ছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে। এই ফোনটি দিয়ে তখন যোগাযোগ করা ছিল একটু কষ্ট কর। কারণ অনেক সময় পর একজন আরেকজনের সাথে কথা বলতে পারতো।

এটি এক প্রকার ত্রুটি। কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি এই ত্রুটি সারিয়ে তুলা হয়। দেখতে দেখতে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ডিভাইসে পরিণত হয়েছে এই মোবাইল ফোন। মোবাইল ফোন দিয়ে নানা ধরনের কাজ করতে পারি তা নিম্নরুপঃ-

১। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমরা খুব দ্রুত একজনের সাথে কথা বলতে পারি।

২। মোবাইল ফোন ব্যবহার করে আমরা এখন পুরো পৃথিবীকে হাতের মুঠোয় রাখতে পারি। কেননা এই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিশ্বের এক প্রান্তে বসে অন্য প্রান্তের খবর কয়েক সেকেন্ডে বের করতে পারি।

৩। অবসর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করে আমরা বিনোদন মূলক কর্মকান্ড করতে পারি ফলে আমাদের মানসিক প্রশান্তি আসে।

৪। আগে কোন পরীক্ষার ফলাফল জানতে অনেকদিন অপেক্ষা করতে হতো কিন্তু মোবাইল ফোন আবিষ্কার হওয়ার পর এখন ফলাফল প্রকাশের সাথে সাথে তা আমরা হাতে পাই। ফলে সময়ের অপচয় কম হয় আর খুব সহজেই সময় বাঁচানো যায়।

৫। আমরা আমাদের গুরুত্বপূর্ণতথ্য ডকুমেন্ট খুব সহজেই মোবাইল ফোনে রাখতে পারি।এছাড়া মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমরা হিসাব-নিকাশ খুব সহজেই করতে পারি।

পরিশেষে বলা যায় মোবাইল ফোন হলো বর্তমান যুগের একটি অন্যতম হাতিয়ার। যেটি না থাকলে আমরা আজকের এই আধুনিক সভ্যতায় অগ্রসর হতে পারতাম না। তাই আমাদের দৈনন্দিন জীবনে মোবাইল ফোনের এর গুরুত্ব অপরিসীম। আর আমাদের উচিৎ এটির সঠিক ব্যবহার করা যাতে পরবর্তী প্রজন্ম বিনষ্ট না হয়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.