মানুষের মধ্য ভিন্নতা— মানুষ বিভিন্ন রকমের হয়।কেউ বা কালো,কেউ বা ফর্সা,কেউ বা শ্যামলা ইত্যাদি ।আর আমরা ই মানুষ কে অনেক সময় তার গায়ের রঙ দেখে বিবেচনা করি।এটি ঠিক না।কারন প্রকৃত মানুষ চিনতে হয় মন দেখে। গায়ের রঙ ভালো হলেই যে সে ভালো মানুষ হবে তার কোনো মানে নেই। মানুষ কে চিনতে হলে আগে নিজে কে জানতে হবে।নিজেকে বুজতে হবে। আপনি যদি নিজে কে বুজতে না পারেন তাহলে মানুষকে কিভাবে বুজবেন? মানু্ষ কে কীভাবে চিনবেন তাই না? তাই আগে নিজেকে বুজুন তারপর মানুষ কে বুজার চেষ্টা করুন। —-মানুষের মধ্য ভিন্নতা

কোনো মানুষ কে একদিনে বুঝা সম্ভব না। আপনি কাউকে একদিনে বুজতে চাইলে সেইটা পারবেন না।কখোনও সম্ভব না। তাই কাউকে বুঝতে হলে আগে তার সাথে মিশতে হবে। তারপর তাকে বুঝ তে পারবেন। আবার আমরা মানূষের হাত পা দেখে বলি যে মানুষটার চরিত্র কেমন…! এইটা উচিত না। এইগুলোর উপর বিশ্বাস করাও উচিত না। কারন মহান আল্লাহ তায়ালা মানুষকে বানিয়েছেন। তাই একটা মানুষের শরীর দেখে তার সম্পর্কে বলা ঠিক না। আশা করি ব্যাপার টা বুঝতে পেরেছেন। আবার কিছু মানুষ দেখবেন যারা শুধু শধু মন খারাপ করে বসে থাকে।তারা নিজেরাও জানে না যে তাদের কেনো মন খারাপ..!

তাদের দেখলেই অনেকের মেজাঝ খারাপ হয়ে জায়। হওয়াটাই স্বাভাবিক। কারন বিনা কারনে কেউ মন খারাপ করলে তাকে দেখলে ভালো কারই বা লাগে। আবার কিছু মানুষ দেখবেন যে যাদের নিজেদের থেকে অন্য কে নিয় চিন্তা বেশি। তারা নিজেদের কথা ভাবে না। অন্যদিন নিয়ে মাতামাতি করে। এই ধরনের মানুষ গুলো খুবই বিপদজনক। তাই যতটা সম্ভব এদের থেকে দূরে থাকা উচিত।

আবার এই ধরনের মানুষ আছে যারা বিনা কারণে বেশি হাসে। তারা জানেই না যে তারা কেন হাসে। কোন একটা কথা শুনলে সেটা হোক হাসির বা কান্নার তাদের হাসতে হবে। এ ধরনের মানুষগুলো বড় অদ্ভুত। পরিশেষে বলা যায় সকল মানুষ আল্লাহ তালা তৈরি করেছে। কিন্তু মানুষের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের বৈচিত্রতা।

কোন মানুষের উপরিভাগ দেখে তাকে বিচার করা উচিত না। একটা মানুষ কেমন তা জানতে হলে অবশ্যই সময় লাগবে। হুট করে কারো সম্পর্কে কোন মন্তব্য করা আমাদের উচিত নয়। কারণ কারো সম্পর্কে কিছু না জেনে কথা বললে ঈমান নষ্ট হয়। তাই আগে মানুষকে জানুন তাকে বুঝতে শিখুন তারপর তাকে নিয়ে কোন মন্তব্য করবেন আশা করি আজকের বিষয়টা বুঝতে পেরেছেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.