Skill builder

পাকিস্তান সৃষ্টির পর পরই বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু হয় । ফলে বাঙালি জনগণ বিশেষ করে ছাত্র সমাজ ও যুব সম্প্রদায় বাংলা ভাষা ,সাহিত্য ,সংস্কৃতি রক্ষার জন্য ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন শুরু করে। এটাই ভাষা আন্দোলন নামে খ্যাত। ভাষা আন্দোলনের সূত্রপাত: ভাষা আন্দোলনের সূত্রপাত হয় ১৯৪৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। –ভাষা আন্দোলন

১৯৪৮ সালের ১১ ই মার্চ তারিখে সংগ্রাম পরিষদের ঘোষিত প্রতিবাদে আন্দোলন তীব্রতর হয়ে ওঠে এবং রক্ত ঝরার মাধ্যমে আন্দোলন বৈপ্লবিক আকার ধারণ করে ।

১৯৫২ সালের ২১ শে ফেব্রুয়ারি বাংলা সম্পর্কে সাবেক পাকিস্তান গণপরিষদে বাংলা ভাষার সিদ্ধান্ত ও সরকারি দলের বাংলা ভাষা বিরোধী কার্যকলাপের ফলে বাংলা ভাষা আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটে। ভাষা আন্দোলনের পটভূমি: পাকিস্তান জন্মের শুরু থেকেই ঢাকায় ছাত্র-শিক্ষক ও বুদ্ধিজীবী মহল রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকে। এর প্রেক্ষাপটে গঠিত হয় গণতান্ত্রিক যুবলীগ ও তমদ্দুন মজলিস।

এ সময় তারা বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি উপস্থাপন করে। কিন্তু পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ উর্দুকে ইসলামী সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের বাহক দাবি করে বলেন যে “একমাত্র উর্দুই হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা. যারা এ ব্যাপারে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করেছেন তারা পাকিস্তানের শত্রু” এখানে লক্ষ করার বিষয় হলো ঊর্ধ্ব প্রকৃতপক্ষে পাকিস্তানের কোন অঞ্চলের ভাষা নয়। উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে চাপিয়ে দেয়া হচ্ছিল।

এটা ছিল অযৌক্তিক ও অগণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত। বাংলাকে রাষ্ট্রভাষার দাবিতে বাংলার প্রথম গণপরিষদ সদস্য ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত উর্দুকেও বাংলা কেউ গণপরিষদের ভাষা হিসেবে ব্যবহারের প্রস্তাব করেন। কিন্তু পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এবং পাকিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী খাজা নাজিমুদ্দিনের বিরোধিতার জন্য এ প্রস্তাব কার্যকরী হয়নি। ফলে এর প্রতিবাদে ১৯৪৮ সালের ১১ ই মার্চ ঢাকা শহরে ছাত্রসমাজের রাষ্ট্রভাষা দিবস পালন করেন।

১৯৪৮ সালের ২১ মার্চ ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ উর্দুকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা হিসেবে ঘোষণা করেন। তার এই ঘোষণার বিরুদ্ধে ছাত্ররা সেদিন নানা প্রতিধ্বনির জানিয়ে প্রতিবাদ করে । এরপর দিনদিন আন্দোলন বাড়তে থাকে। তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী নুরুল আমিন ঢাকা শহরে এক মাসের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করে সভা ও শোভাযাত্রার নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন।

হাজার 952 সালের একুশে ফেব্রুয়ারি অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায়ের পথে সংগ্রাম করে বাঙালির ছাত্রসমাজ। জাতীয় জীবনে এটি একটি স্মরণীয় দিন। ঐদিন ছাত্রছাত্রীরা বিশ্ববিদ্যালয় হতে শান্তিপূর্ণ মিছিল নিয়ে বের হয়ে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে প্রাদেশিক আইন পরিষদের দিকে অগ্রসর হলে নুরুল আমিন সরকারের নির্দেশে পুলিশ ও ইপিআর নির্বিচারে মিছিলের উপর গুলি চালায়।

পুলিশের গুলিতে নিহত হয় সালাম ,বরকত, রফিক ,জব্বার এর প্রতিবাদে জনতা রাস্তায় নেমে আসে।

অবশেষে সরকার জনগণের চাপের মুখে বেগতিক হয় ঐদিন বাংলাকে রাষ্ট্রভাষার স্বীকৃতি প্রদান করে। উপসংহার : ১৯৯৯ সালের ৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর সদরদপ্তরে মাতৃভাষা দিবস হিসেবে একটি নির্দিষ্ট দিন কে চিহ্নিত করে পালন করার প্রয়াস শুরু হয়।

২০০০ সাল হতে দিবসটি ১৮৮ টি রাষ্ট্রের যথাযথ মর্যাদার সাথে পালিত হতে থাকে। এর সাথে সাথে বাঙালি জাতির ও বাংলা ভাষার সম্মান বেড়ে যায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.