মানবজীবনে গেমস এর প্রভাব বর্তমান বিশ্ব প্রযুক্তিনির্ভর বিশ্ব। এই বিশ্বে গেমস একটি জনপ্রিয় মাধ্যম। দৈনন্দিন আমরা প্রতিদিনই গেম এর সাথে পরিচিত হয়ে থাকি। আর আমরা অনেক সময় অনেক গেমস খেলে সারা দিন কাটাই। কিছু কিছু গেইমস আমাদের জন্য ভালো এবং কিছু কিছু গেইমস আমাদের জন্য ক্ষতিকর। আজ এই গেমের ভিতরে কোন গুলো ভালো এবং কোনগুলো ক্ষতিকর, আমাদের কিভাবে গেম খেলা উচিত,কতটুকু সময় ব্যয় করা উচিত তা নিয়ে আলোচনা করবো শুরু করা যাক। বর্তমানে অনলাইনে সবচেয়ে জনপ্রিয় গেমস গুলোর ভিতরে পাবজি ফ্রী ফায়ার অন্যতম। এছাড়াও আরও অনেক গেমস রয়েছে যেমন ক্রিকেট গেমস, গাড়ি গেম, বাস গেম ইত্যাদি। গেমস যে খারাপ আমি তা বলিনি। কিন্তু কোন কিছু মাত্রাতিরিক্ত ভালো না। সবকিছুই একটি লিমিটের ভিতরে থাকা উচিত। বর্তমান যুবক সমাজের অধিকাংশ যুবকেই এইসব গেমের দিকে নিজেদের আসক্তি দিন দিন বাড়িয়ে তুলছে। ফলে তারা নানা রকম অসুবিধা তে ভুগছে। কেননা সারারাত জেগে গেম

খেলার ফলে তারা সারাদিন মানসিক যন্ত্রণায় ভোগে। এর ফলে কোন কাজে মন বসাতে পারেনা। মানসিক প্রশান্তি এগুলো তারা ভুলে যায়। আমাদের দিনে 2 থেকে 3 ঘন্টা গেম খেলা উচিত। এর বেশি যদি আমরা গেমস খেলে তাহলে সেটার প্রভাব আমাদের মস্তিষ্কে পরে এবং এর ফলে যেসব সুবিধা হয় তার ভিতরে অন্যতম হল মাথা ব্যথা, শরীর দুর্বল, খাবারে অরুচি, লেখাপড়ায় অমনোযোগী ইত্যাদি। তাই আমাদের উচিত সবকিছুই লিমিটের ভিতরে সীমাবদ্ধ রাখা। কারণ কোন কিছু করার আগে সেটির ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে আমাদের অবশ্যই সচেতন থাকতে হবে। আর এক্ষেত্রে পরিবার একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

কেননা পরিবার থেকে যদি এটা সতর্ক না করা হয় তাহলে এর প্রভাব ভবিষ্যতে খুবই খারাপ হবে। এমনকি অনেকে এই অতিরিক্ত গেমস খেলার ফলে মৃত্যু পর্যন্ত হয়েছে। আশা করি ব্যাপারটা বুঝাতে পেরেছেন।আমি আবারো বলছি আমি গেমস এর বিপরীতে না, কিন্তু সবকিছুই লিমিটের ভিতরে খেলতে হবে কারন কোন কিছুই বেশি ভাল না।

ইতিমধ্যে সরকার এই এর উপর একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবস্থা নিয়েছে। সারা বাংলাদেশ থেকে ফ্রী ফায়ার পাবজি গেম ব্যান্ড করে দিয়েছে। কিন্তু এর ফলে বেশি একটি লাভ হয়নি, কারণ ভি পি এন ইউজ করে অনেক শিশুরা এখন গিয়ে এই গেমটি খেলতে পারে আর একটি বড় অন্যতম সমস্যা। আর এই গেমস টি খেলার ফলে অনেক টাকা বিদেশে চলে যাচ্ছে। কারণ ছেলেমেয়েরা আক্রমণাত্মক হয়ে যাচ্ছে। তাই আমাদের এই গেম টি থেকে বিরত থাকতে হবে.— মানবজীবনে গেমস এর প্রভাব

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.